35 C
Bangladesh
বৃহস্পতিবার, মে ২৩, ২০২৪

গুগল কিভাবে টাকা আয় করে? আপনি কিভাবে টাকা আয় করবেন?

অন্যান্য খবরগুগল কিভাবে টাকা আয় করে? আপনি কিভাবে টাকা আয় করবেন?

বিলিয়ন বিলিয়ন মানুষ যে মাধ্যমকে ব্যবহার করে টাকা আয় করছে, নতুন নতুন ওয়েবসাইট তৈরি করছে, অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করছে, সেই গুগল কিভাবে টাকা আয় করছে?  তা কি জানেন? আমদের আজকের আলোচনার বিষয় থাকবে, গুগল কিভাবে টাকা আয় করে। 

Blogger, Youtube, Google Play Store থেকে কোটি কোটি মানুষ টাকা উপার্জন করছে। আর যারা বড় বড় ইউটিউবার আছেন তারা তো ”Google Adsense” এর মাধ্যমে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করে নিচ্ছেন প্রতি মাসেই। আর ভালো কন্টেন্ট এর ভিডিও হলে তো কথাই নেই, কয়েক দিনেই বহুগুন টাকা আয় করছেন। গুগল থেকে তারা আয় করছেন কিন্তু গুগল কি কি মাধ্যম থেকে আয় করছে। গুগল কিভাবে টাকা আয় করছে।  আর এটা বলার অবকাশ থাকে না, একজন গুগলের ইঞ্জিনিয়ার প্রতি মাসে প্রায় দেড় কোটি টাকার মতো বেতন পেয়ে থাকে আর বাহ্যিক খরচ তো আছেই।

Google LLC হলো ”American Multinational Technology Company” যা ইন্টারনেটের যাবতীয় প্রোডাক্ট এবং সার্ভিস প্রোভাইড করে থাকে। গুগল এর অনেকগুলো। গুগলের জনপ্রিয় সার্ভিসগুলো হলো –

Online Advertising , Cloud Computing, Search Engine, Android OS, Office Tools,Youtube, Email Service, Blogger, Google Play Store, Hardware, Software, Google Maps, Google Drive ইত্যাদি। 

২০১০ সালের পর থেকে গুগল একটি করে কোম্পানির মালিক হয়ে আসছিলো। এরকম আরো ৭০ টি কোম্পামির মালিক এখন গুগল। কিন্তু বর্তমানে আমরা Google বলতে গুগল সার্চ ইঞ্জিনকেই বুঝি। কারন আমরা যেকোনো বিষয় সম্পর্কে জানতে, তথ্য সংগ্রহ করতে, এমনকি ম্যাপও দেখতে সবার প্রথম পছন্দ গুগল। কারন গুগল জানেনা এমন কোনো বিষয় নেই। এটাই সবার ধারণা এবং এটিই সত্যি।

ফোর্বস নিউজের হিসাব মতে,  প্রতি সেকেন্ডে গুগল গড়ে ৪০ হাজার অনুসন্ধান এর জবাব দেয়।অর্থাৎ, প্রতিদিন যার মানে সাড়ে তিন বিলিয়ন অনুসন্ধান এর জবাব দিতে হয় গুগলকে। আবার অন্যদিকে গুগল বর্তমানে সব ধরনের মার্কেটপ্লেস দখল করে নিয়েছে। আপনি কি জানেন, গুগল একদম প্রথমে কি সেবা দিয়েছে? যে ঠিকই বুঝেছেন, গুগল প্রথমে সার্চ ইঞ্জিন দিয়েই আরম্ভ করে। আর এখন সবকিছুর নিয়ন্ত্রক।

Google নাম কিভাবে হলো?  

আয়ের উৎস জানার আগে গুগল সম্পর্কে কিছু তথ্য জেনে নেওয়া যাক। সত্যিকার অর্থে গুগলের নামের কোনো অর্থই নেই। তাহলে কি ভুল করেই গুগল নামটি এসেছে। সত্যিই তাই, গানিতিক হিসাবের গোগল (googol) ভুল করে লেখার মাধ্যমেই গুগল ( Google )  নামটি এসেছে। যার অর্থ মনে করা হয়, ১ এর পর ১০০ টি শূন্য।

আমরা যখন কোনো কিছু গুগলে সার্চ করি, সেই অনুসন্ধানগুলো গুগল নিজের কাছে রেখে দেয়। আপনি একটু খেয়াল করলেই দেখতে পাবেন, আপনি যে বিষয়ে সার্চ দেন, পরবর্তীতে গুগলে ঢুকলে সেই বিষয় গুলোই গুগল আপনার নিউজফিডে দেখায়। যেমনটি করে থাকে ফেসবুক।  আর এভাবেই গুগল আমাদের যাবতীয় ইনফরমেশন, পছন্দ-অপছন্দ জানে এবং কালেক্ট করে রেখে দেয়। এটিকেই কাজে লাগিয়ে গুগল নিজের ব্যবসার মডেল তৈরি করে এবং Digital Marketing করে থাকে। গুগল যে সবসময় ব্যবসা করে থাকে সেটিও নয়। গুগল অনেক সময় মজার মজার ব্যাপারও ঘটিয়ে থাকে। যেমন গুগলে ” askew ” শব্দটি লিখে দেখতে পারেন।

আরো পড়ুন:  আসাম বন্যা: পরিস্থিতি ভয়াবহ, ষষ্ঠ দিনের মতো জলমগ্ন শিলচর; IAF বন্যা ত্রাণ অভিযান চালায়

ব্যাকরাব

গুগলের প্রতিষ্ঠাতা ল্যারি পেজ এবং সের্গেই ব্রিন এই প্রতিষ্ঠানের প্রথম নাম দিয়েছিলেন ব্যাকরাব। যার অর্থ, একটি ওয়েবসাইট আরেকটি ওয়েবসাইটকে খুঁজে বের করা এবং সেগুলোর অতীত লিংকের উপর ভিত্তি করে ওয়েবপেইজের র‍্যাঙ্কিং নির্ধারণ করা।

এখন আমরা দেখবো গুগলের আয়ের উৎসগুলো কি কি  –

প্রথমেই গুগল Online Marketing থেকে কিভাবে আয় করে আমরা তা তুলে ধরলো –

Google Ads

গুগল কিভাবে টাকা আয় করে? গুগলের সবচেয়ে বেশি আয় হয়ে থাকে Online Advertising এর মাধ্যমেই। এছাড়াও, Digital Marketing, Search Engine Marketing ইত্যাদি সেবার দেওয়ার মাধ্যমে গুগল আয় কর। গুগল প্রতি সেকেন্ডে $2378.23 আয় করে থাকে। যার বেশির ভাগ আসে Advertising থেকে। ছবিতে আপনারা মার্ক করা প্রথম যে রেজাল্ট দেখতে পাচ্ছেন তা হলো Google Ads, অর্থাৎ গুগলকে এর জন্য তারা টাকা দিয়েছে। অর্থাৎ বিভিন্ন কোম্পানি বা বিভিন্ন ব্যবসার মালিকরা গুগলকে টাকা দিয়ে থাকে প্রথমে এ রেজাল্ট দেখানোর জন্য। আর এজন্য তারা Google Ads Platform ব্যবহার করে তাদের Products, website, service, video, app, promotion ইত্যাদি Ads দেখানোর জন্য গুগলকে পেমেন্ট করে। এছাড়া বিভিন্ন অনলাইন মার্কেটপ্লেসে বিভিন্ন কোম্পানির এড শো করানোর জন্য Google কে যত ডলার পেমেন্ট করে, তার 45% ডলার গুগল রেখে দেয় এবং বাকি 55% Youtube, Blogger, App এর Publisher দের ক্লিক অনুযায়ী দিয়ে দেয়।

Google Play Store

আপনার যেকোনো প্রয়োজনীয় অ্যাপের জন্য অবশ্যই তা গুগল থেকে ডাউনলোড করেন। আর যে কেউ ইচ্ছে করলে নিজের তৈরি অ্যপ গুগল প্লে স্টোরে পাবলিশ করতে পারে। তবে এর জন্য নূন্যতম $25 পেমেন্ট করতে হয় গুগলকে। আর এই রকম প্রতিদিন লক্ষ লক্ষ অ্যাপ প্রতিনিয়ত সাবমিট করছে Play Store- এ। তাহলে নিশ্চয়ই আন্দাজ করতে পারছেন, Google Play Store থেকে কি পরিমান ডলার আয় করছে গুগল। এছাড়া Play Store এ Advertising করেও বহু ডলার আয় করছে। প্রতিবছর গুগল মোট  $74.98 billion আয় করে থাকে।

আরো পড়ুন:  দাঙ্গা নিয়ে মোদীর বিরুদ্ধে সেতালভাদের প্রচারের পিছনে সোনিয়া গান্ধী, কংগ্রেস 'প্রেরণামূলক শক্তি': বিজেপি

Google Play Store থেকে Google এর আয়ের পরিমান প্রত্যেক বছরের হিসাবকে চারটি ভাগে ভাগ করা হয়ে থাকে

App Revenue থেকে GOOGLE এর আয়

Quarter         App Revenue

Q1 2016    $9.1 billion

Q2 2016    $10.8 billion

Q3 2016    $11.6 billion

Q4 2016    $12.0 billion

Q1 2017    $13.5 billion

Q2 2017    $13.6 billion

Q3 2017    $15.3 billion

Q4 2017    $15.7 billion

Q1 2018    $16.7 billion

Q2 2018    $17.7 billion

Q3 2018    $17.8 billion

Q4 2018    $19.1 billion

Q1 2019    $20.7 billion

Q2 2019    $22.6 billion

Q3 2019    $23.3 billion

Q4 2019    $22.4 billion

Q1 2020    $23.3 billion

Q2 2020    $26.9 billion

Q3 2020    $28.9 billion

Q4 2020    $31.9 billion

অ্যাপ্লিকেশনের থেকে গুগলের আয়ের মধ্যে প্রধান দুটি মাধ্যম হলো অ্যানড্রোয়েড এবং আইওএস (iOS)। প্রতিবছরেরি এর চাহিদা বেড়েই চলেছে। কিন্তু সবচেয়ে বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে করোনার কারনে, সবাই বাসায় বেশি সময় কাটানোর জন্য।

iOS APP Revenue থেকে GOOGLE এর আয়

Quarter    iOS App Revenue

Q1 2016    $6.0 billion

Q2 2016    $7.0 billion

Q3 2016    $7.6 billion

Q4 2016    $8.0 billion

Q1 2017    $8.3 billion

Q2 2017    $9.6 billion

Q3 2017    $10.8 billion

Q4 2017    $9.8 billion

Q1 2018    $10.8 billion

Q2 2018    $11.8 billion

Q3 2018    $11.6 billion

Q4 2018    $12.4 billion

Q1 2019    $13.6 billion

Q2 2019    $14.7 billion

Q3 2019    $15.3 billion

Q4 2019    $14.8 billion

Q1 2020    $15.0 billion

Q2 2020    $17.3 billion

Q3 2020    $18.6 billion

Q4 2020    $21.4 billion

মোট ব্যবহারকারীর সংখ্যা চেয়ে অ্যান্ড্রোয়েডের চেয়ে অনেক পিছিয়ে আছে অ্যাপল।  অ্যাপলের অ্যাপ স্টোর ব্যবহারকারীর সংখ্যা ১৫ শতাংশের কম।

Google Play App Revenue থেকে GOOGLE এর আয়

Quarter    Google Play App Revenue

Q1 2016    $3.1 billion

Q2 2016    $3.8 billion

Q3 2016    $4.0 billion

Q4 2016    $4.1 billion

Q1 2017    $5.2 billion

Q2 2017    $5.0 billion

Q3 2017    $5.1 billion

Q4 2017    $5.9 billion

আরো পড়ুন:  কেরানীগঞ্জ উন্নয়ন সোসাইটির ঈদ উপহার পেল দুই শতাধিক শিশু

Q1 2018    $5.9 billion

Q2 2018    $5.9 billion

Q3 2018    $6.2 billion

Q4 2018    $6.8 billion

Q1 2019    $7.1 billion

Q2 2019    $7.9 billion

Q3 2019    $8.0 billion

Q4 2019    $7.6 billion

Q1 2020    $8.3 billion

Q2 2020    $9.6 billion

Q3 2020    $10.3 billion

Q4 2020    $10.4 billion

অ্যান্ড্রোয়েড এর ব্যবহার ও রাজস্ব আয়ের ক্ষেত্রে ১৬৭ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। যা ভবিষৎয়ে আরো নতুন মাত্রা যোগ করবে গুগল ব্যবহারকারীদের জন্য।

Gaming App Revenue থেকে Google এর আয়

Quarter    Gaming App Revenue

Q1 2016    $8.1 billiom

Q2 2016    $8.9 billion

Q3 2016    $10.0 billion

Q4 2016    $10.7 billion

Q1 2017    $11.4 billion

Q2 2017    $11.2 billion

Q3 2017    $12.2 billion

Q4 2017    $12.2 billion

Q1 2018    $13.1 billion

Q2 2018    $13.1 billion

Q3 2018    $13.6 billion

Q4 2018    $14.1 billion

Q1 2019    $15.1 billion

Q2 2019    $15.2 billion

Q3 2019    $16.5 billion

Q4 2019    $16.4 billion

Q1 2020    $17.5 billion

Q2 2020    $19.3 billion

Q3 2020    $20.9 billion

Q4 2020    $21.8 বিল্লিওন

আইওএস এবং অ্যান্ড্রোয়েডের আয়ের জন্য সবচেয়ে প্রধান ও প্রাথমিক মাধ্যম হিসেবে রয়ে গেছে গেমিং। ২০২০ সালের তৃতীয় কোয়ার্টারে তাদের মোট আয়ের ৭২.৩ শতাংশই আসে গেমিং থেকে।

Google Cloud Service

Google Cloud Platform হলো গুগলের একটি Paid Service. এর মাধ্যমে গুগল বিভিন্ন কোম্পানিকে তাদের ওয়েব হোস্টিং করার জন্য প্রয়োজনীয় জায়গা দিয়ে থাকে। যার পরিবর্তে গুগলকে ডলার দিতে হয়। আর ক্লাউট সেবা নির্ভর করে আপনি কতো পেমেন্ট করলেন তার উপর। ক্লাউডে জমা রাখা তথ্য কোথায় যায়? হার্ডডিস্ক বা ফোন মেমোরির পরিবর্তে ক্লাউডে রাখা তথ্য বিশ্বের বড় বড় ডাটা সেন্টারে সংরক্ষিত থাকে। ক্লাউড সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান হিসেবে গুগল ছাড়াও অ্যামাজন, অ্যাপল, মাইক্রোসফট এবং ফেসবুক তাদের বিশাল ডাটা সেন্টারে তথ্য রাখার মাধ্যমে ক্লাউড সেবা দিয়ে থাকে। আর এই ক্লাউড সেবা দিয়ে গুগল বিপুল অংকের টাকা আয় করে নিচ্ছে। Google এর ক্লাউড সেবার মধ্যে রয়েছে, Web Hosting, Developer Tools, Data Storage, Networking, API Management, Machine Learning, Cloud Computing, Data Analytics সহ ইত্যাদি সেবা দিয়ে বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার আয় করছে বছরের এক চতুর্ভাগেই।

Check out our other content

Check out other tags:

Most Popular Articles