Ads
Home পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় কুবিতে ‘মানসিক স্বাস্থ্য বিপর্যয় ও প্রতিকার’কর্মশালা

কুবিতে ‘মানসিক স্বাস্থ্য বিপর্যয় ও প্রতিকার’কর্মশালা

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউশনাল কোয়ালিটি অ্যাস্যুরেন্স সেলের (আইকিউএসি) আয়োজনে ‘কোভিড ১৯ মহামারী করোনাকালীন শিক্ষার্থীদের মানসিক স্বাস্থ্য বিপর্যয় ও প্রতিকার’ বিষয়ক দিনব্যাপী  কর্মশালার আয়োজন করা হয়েছে৷

বৃহস্পতিবার ( ২২ সেপ্টেম্বর)  সকাল ১০ টা থেকে বিকাল ৫ টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে দিনব্যাপী এ কর্মশালা চলবে৷ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের ক্লাস রিপ্রেজেনটেটিভদের (সি আর) নিয়ে এ কর্মশালা শুরু  হয়৷

আইকিএসির পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. রশিদুল ইসলাম শেখের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ এফ এম আব্দুল মঈন, বিশেষ অতিথি ছিলেন ট্রেজারার অধ্যাপক ড. মো.আসাদুজ্জামান৷  রিসোর্স  পার্সন  হিসেবে আছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লিনিক্যাল সাইকোলজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ও সহকারী অধ্যাপক জোবেদা খাতুন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ এফ এম আব্দুল মঈন বলেন, আজকের সেশনটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ৷ এই সেশনটি গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন দিক দিয়ে আমরা সবসময় শারীরিক স্বাস্থ্য নিয়ে কথা বলি কিন্তু মানসিক স্বাস্থ্য এড়িয়ে যাই৷ কিন্তু মানসিক শান্তি হচ্ছে কিছু কিছু সময় শারীরিক স্বাস্থ্যের চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ৷ শারীরিক স্বাস্থ্যের সাথে মানসিক স্বাস্থ্য সম্পর্কযুক্ত।  শুধু করোনাকালীন পরবর্তী সময় নয়, মানসিক স্বাস্থ্য সবসময়ের জন্যই গুরুত্বপূর্ণ৷ এটি সরকার, পসিলি মেকারদের কাছেই শুধু অবহেলিত নয়, আমাদের পরিবার এবং সমাজেও অবহেলিত৷

তিনি আরও বলেন, আমরা খুবই দুঃখের সাথে দেখি  যে সাইকোলজিক্যাল এবং মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য আমাদের বাজেট খুবই সীমিত৷

রিসোর্স পার্সন জোবেদা খাতুন বলেন, আমরা দেখেছি করোনার কারণে শিক্ষার্থীরাই সবচেয়ে বেশি মানসিক বিপর্যের মধ্যে পড়ে গেছে৷ এই বিপর্যয়ের মাত্রাটা এরকম যে, অনেকে পড়াশোনা করতে পারছেনা, ঘুম হচ্ছেনা, পরীক্ষায় বসতে পারছে না৷ আত্মহত্যা করার একটা প্রবণতা তাদের মধ্যে দেখা যাচ্ছে৷ যদিও আমাদের শিক্ষার্থীরা অনেকবেশি সহনশীল৷ কিভাবে আমরা মানসিক ভাবে শক্তিশালী হতে পারি সেই পদ্ধতিটাই আমরা দিনভর শিখব৷

আইকিউএসি পরিচালক অধ্যাপক ড. রশিদুল ইসলাম শেখ  ছাত্র প্রতিনিধিদের উদ্দ্যেশ্যে বলেন, আপনারা আজ যে জ্ঞান অর্জন করবেন, সেটা আপনার বিভাগে ফিরে গিয়ে সে জ্ঞানটি বিতরণ করার উদ্যোগ গ্রহণ করবেন৷ কারণ বিশ্ববিদ্যালয়ের সীমাবদ্ধতা আছে৷ এই অডিটোরিয়ামটি যদি আরও বড় হতো তাহলে আমরা একসাথে সবাইকে আনতে পারতাম৷ আজ আমরা যাদেরকে ডাকতে পারিনি আগামীতে তাদের নিয়ে এ জাতীয় একটি প্রোগ্রাম করার চেষ্টা করব৷

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন ছাত্র পরামর্শক ও নির্দেশনা  কার্যালয়ের পরিচালক ড. মোহা. হাবিবুর রহমান, আইকিউএসির অতিরিক্ত পরিচালক  ড. মো. গোলাম মোর্তাজা তালুকদার, বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক ও ছাত্র প্রতিনিধিরা৷

উল্লেখ্য, এ কর্মশালাটি গত ২৯ আগস্ট অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও নৈতিক স্খলনের জড়িত থাকার অভিযোগে অভিযুক্ত শিক্ষককে দিয়ে শিক্ষার্থীদের মানসিক স্বাস্থ্যবিষয়ক প্রশিক্ষণের আয়োজন করায় বির্তকের সৃষ্টি হয়। পরে আযোজকরা কর্মশালাটি স্থগিত করে।

Exit mobile version