27 C
Bangladesh
সোমবার, মার্চ ৪, ২০২৪

বেরোবিতে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুতের দাবিতে বিক্ষোভ, প্রশাসনের আশ্বাসে প্রত্যাহার

পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়বেরোবিতে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুতের দাবিতে বিক্ষোভ, প্রশাসনের আশ্বাসে প্রত্যাহার
নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুতের দাবিতে বিক্ষোভ ও অবস্থান কর্মসূচী পালন করেছে  বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলের আবাসিক শিক্ষার্থীরা। বেরোবিতে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুতের দাবিতে বিক্ষোভ, প্রশাসনের আশ্বাসে প্রত্যাহার
শনিবার (৯ মার্চ) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা থেকে হলের সামনে বিদ্যুতের দাবিতে আন্দোলন শুরু করে শিক্ষার্থীরা। পরে ডাইনিংয়ের খাবারের মান বৃদ্ধিসহ বেশ কয়েকটি দাবি তোলেন শিক্ষার্থীরা। বেরোবিতে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুতের দাবিতে বিক্ষোভ, প্রশাসনের আশ্বাসে প্রত্যাহার
আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা জানান, হলের মধ্যে বিদ্যুৎ সমস্যা লেগেই আছে। রমজান মাস আসার পর থেকে বিকাল বেলা বিদ্যুৎ থাকেনা। বিষয়টি নিয়ে হলের অফিসে বারবার জানানো হলেও কোন সমাধান আসেনি। পরে বাধ্য হয়ে দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রভোস্ট তানিয়া তোফাজকে ফোন দেয় তারা। ফোন পেয়ে হল প্রভোস্ট শিক্ষার্থীদের সাথে রূঢ় আচরণ করেন বলে অভিযোগ করেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। বেরোবিতে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুতের দাবিতে বিক্ষোভ, প্রশাসনের আশ্বাসে প্রত্যাহার
আন্দোলন শুরুর পরপরই প্রক্টরিয়াল বডি, প্রভোস্ট বডিসহ ছাত্র পরামর্শ দপ্তরের পরিচালক, বহিরাঙ্গন কার্যক্রম দপ্তরের পরিচালক এবং বেরোবি বঙ্গবন্ধু পরিষদের এক নেতা ঘটনাস্থলে এসে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলেন। দাবি পূরণের আশ্বাস দিলে রাত প্রায় ১০টায় হলে ফেরে যায় আন্দোলনকারী ছাত্রীরা। বেরোবিতে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুতের দাবিতে বিক্ষোভ, প্রশাসনের আশ্বাসে প্রত্যাহার
হল ও প্রকৌশল দপ্তর সূত্রে জানা যায়, বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলের প্রত্যেক রুমে দুই থেকে তিনটি বৈদ্যুতিক হিটার ব্যবহার করে শিক্ষার্থীরা। সে হিসেবে প্রায় ৫০০ থেকে ৬০০টি বৈদ্যুতিক হিটার একটি হলে ব্যবহৃত হচ্ছে। রমজান মাসে সবাই বিকেলের পর প্রায় একই সময়ে রান্নার জন্য বৈদ্যুতিক হিটার ব্যবহার করায় ওভারলোডের কারণে লোডশেডিং হয়। হল কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে বৈদ্যুতিক হিটার ব্যবহারে নিষেধাঙ্গা আরোপের পরেও হিটার ব্যবহার বন্ধ হচ্ছে না। ফলে বারবার চেষ্টা করেও এ সমস্যার কোন সমাধান করতে পারিনি কর্তৃপক্ষ। বেরোবিতে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুতের দাবিতে বিক্ষোভ, প্রশাসনের আশ্বাসে প্রত্যাহার
এ ব্যাপারে হল প্রভোস্ট তানিয়া তোফাজ বলেন, শিক্ষার্থীরা আগামীকাল তাদের দাবিগুলো লিখিতভাবে জানালে আমরা কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলে সমাধানের ব্যবস্থা করব। শিক্ষার্থীদের সাথে রূঢ় আচরণের বিষয়ে তিনি বলেন, এটা আনঅফিসিয়ালি। বেরোবিতে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুতের দাবিতে বিক্ষোভ, প্রশাসনের আশ্বাসে প্রত্যাহার
বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর গোলাম রব্বানী বলেন, আন্দোলনের কথা শুনে আমি প্রথমে সহকারী প্রক্টরকে পাঠিয়েছি। পরে আমি নিজেও সেখানে যাই। শিক্ষার্থীদের দাবীগুলো সব যৌক্তিক ছিল। প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাদের সব সমস্যার সমাধান করা হবে। ইলেক্ট্রিসিটির যে সমস্যা ছিল সেটার সমাধান ইতোমধ্যে করা হয়েছে। আশা করি বাকিগুলো খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে সমাধান করা হবে।

Check out our other content

Check out other tags:

Most Popular Articles