30 C
Bangladesh
রবিবার, জুন ১৬, ২০২৪

চবিতে স্কলারশিপ প্রাপ্ত ৫৫ শিক্ষার্থী ও ৯ গবেষককে সংবর্ধনা

চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়চবিতে স্কলারশিপ প্রাপ্ত ৫৫ শিক্ষার্থী ও ৯ গবেষককে সংবর্ধনা
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) বিদেশে উচ্চশিক্ষায় স্কলারশিপ প্রাপ্ত ৫৫ জন শিক্ষার্থী ও বিগত বছরের সর্বোচ্চ ইমপ্যাক্ট ফ্যাক্টরধারী ৯ জন গবেষণাপত্র প্রকাশকদের সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে।
রবিবার (৩১ জুলাই) বেলা ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে এই সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থী কাবেরী দাসের সঞ্চালনায় পরিচালক হিসেবে ছিলেন জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড বায়োটেকনোলজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. আদনান মান্নান ও ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড.কাজী তানভীর আহমেদ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক বেনু কুমার দে। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার।
অধ্যাপক বেনু কুমার দে বলেন, তোমাদের এই অর্জনে আমরা গৌরবান্বিত হই। আমরা প্রায় সময়ই দেখি চবি নেগেটিভ শিরোনামে পরিচিত হচ্ছে। এই পরিচিতি আমাদের হতাশ করে। কিন্তু যখন তোমাদের মতো উজ্জ্বল নক্ষত্রগুলো দেখি আমরা প্রাণ ফিরে পাই। আমি স্বপ্ন দেখি তোমরা যদি এইভাবে এগিয়ে যাও তাহলে ৫ বছরের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের র‍্যাংকিং এ আমরা প্রবেশ করতে পারবো।
উপাচার্য অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার বলেন, আমরা দেখেছি জামাল নজরুল স্যারকে; যিনি দেশকে ভালোবেসে উন্নত জীবন ছেড়ে বাংলাদেশে ফিরে এসেছেন। এই দেশের লাখো অসহায় মানুষ তোমাদেরকে নিয়ে স্বপ্ন দেখে। তোমরা এই বিশ্ববিদ্যালয়ে জনগণের টাকায় পড়াশোনা করেছো। তাই পৃথিবীর যে প্রান্তেই যাও না কেন দেশের মানুষের প্রতি তোমাদের দায়বদ্ধতার কথা ভুলবে না। তোমাদের মতো তরুণরাই পারবে এই বাংলাদেশকে বিশ্বের বুকে সম্মানিত করতে।
তিনি আরও বলেন, আমি শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের বলতে চাই বিশ্ববিদ্যালয়কে এগিয়ে নিয়ে যায় গবেষণা। আমাদের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করে। আপনারা গবেষণা করুন,নতুন নতুন তত্ত্ব আবিষ্কার করুন। বড় বড় জার্নালে প্রকাশ করুন।  আর্থিক সমস্যায় পড়লে আমাদের জানাবেন। আমরা আপনাদের সর্বোচ্চ সহায়তা করবো।
ইমপ্যাক্ট ফ্যাক্টরধারী গবেষণাপত্র প্রকাশক শিক্ষকরা হলেন কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ড. মোহাম্মদ খায়রুল ইসলাম ও ড. ফারাহ জাহান, ফরেস্ট্রি অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্সেস বিভাগের ড.তরিত কুমার বাউল, বায়োকেমিস্ট্রি অ্যান্ড মলিকুলার বিভাগের মো. আতিয়ার রহমান, ফার্মেসি বিভাগের মো. গিয়াস উদ্দিন, নৃবিজ্ঞান বিভাগের খাদিজা মিতু, হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট বিভাগের  মো. আফতাব উদ্দিন, মার্কেটিং বিভাগের  শান্ত বণিক, মেরিন সায়েন্স বিভাগের ড. এস.এম. শরীফুজ্জামান।
স্কোপাস ইনডেক্সড জার্নালে চবির শীর্ষ ৫ প্রকাশকরা হলেন ফার্মেসি বিভাগের সাদ আহমেদ সামি, রসায়ন বিভাগের লাকি দে, উদ্ভিদবিদ্যা বিভাগের সজিব রুদ্র, ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের  মো. আব্দুল কাইউম খান ও জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং এবং বায়োটেকনোলজি বিভাগের শাগুফতা মিজান এবং ফিসারিজ বিভাগের ইস্তিউক আহমেদ রুবি, জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং এবং বায়োটেকনোলজি বিভাগের আবু তায়েব মঈন।
প্রসঙ্গত, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় রিসার্চ অ্যান্ড হায়ার স্টাডি সোসাইটি (সিইউআরএইচএস) ২০১৯ সাল থেকে উচ্চশিক্ষা এবং গবেষণা বিষয়ে শিক্ষার্থীদের যথাযথ দিকনির্দেশনা দিতে বিভিন্ন সেমিনার এবং ওয়ার্কশপ আয়োজন করছে।

Check out our other content

Check out other tags:

Most Popular Articles