27 C
Bangladesh
রবিবার, মার্চ ৩, ২০২৪

শিশুদের কীটনাশক থেকে রক্ষা করুন” বিষয়ক SHISUK’র ক্যাম্পেইন পালন

অন্যান্য খবরশিশুদের কীটনাশক থেকে রক্ষা করুন" বিষয়ক SHISUK'র ক্যাম্পেইন পালন

SHISUK (Shikkha Shastha Unnayan Karzakram) এর উদ্যোগে কুমিল্লার দাউদকান্দিতে শিশুদের কীটনাশক থেকে রক্ষা করুন (Protect Our Children-Children- POC) ক্যাম্পেইন পালিত হয়েছে।

বিশ্ব পরিবেশ দিবসকে ঘিরে গত ৫ ও ৬ জুন বেশ কয়েকটি কার্যক্রমের মধ্য দিয়ে তারা এ ক্যাম্পেইন পালন করেছে। তার মধ্যে কীটনাশক বিষয়ক যাবতীয় সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে বাংলায় POC ( Protect Our Children) অনুসরণ করে ফেস্টুন তৈরি, ৫০০টি প্ল্যাকার্ড (পোস্টার, POC-তে লেখা, POC-তে বার্তা এবং মানবদেহে কীটনাশকের ক্ষতিকর প্রভাবগুলো চিহ্নিত প্রিন্টকপি দাউদকান্দি এলাকার ৪টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও POC এর প্রোগ্রামে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে বিতরণ করা হয়। একই সাথে SHISUK এর উদ্যোগে দাউদকান্দি এলাকার ৪টি স্কুল, ৫ তারিখে কুমিল্লার কোলাকোপা ও নুরপুর প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং ৬ জুন দৌলতপুর ও খোপবাড়িয়া বিদ্যালয়ে প্রচারাভিযান অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এসময় শিশুকের ডাকে সাড়া দিয়ে অত্র এলাকার ছাত্র-ছাত্রী, অভিভাবক সম্প্রদায়ের নেতা, কৃষক সম্প্রদায়ের সদস্যরা ক্যাম্পেইন উদযাপন করতে জড়ো হয়। এসময়ে বিক্ষোভ, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উদযাপিত হয় এবং POC (protect Our Children) এ শিক্ষক ও শিসুকের সদস্যরা ব্রিফিংয়ে অংশগ্রহণ করে।

আরো পড়ুন:  ৪ দশক পর যুক্তরাজ্যে পোলিও ভাইরাস শনাক্ত হওয়ার পর তদন্তাধীন পাকিস্তান

পরিকল্পনা অনুসারে, এই POC ( Protect Our Children) প্রচারাভিযানটি চালানোর জন্য ৫ ও ৬ জুন, দিনটির পরিকল্পনা করার জন্য একটি টিম ব্রিফিংয়ের মাধ্যমে দিনটি শুরু করেছিল ১০ জনের একটি স্বেচ্ছাসেবক দল নিয়ে দাউদকান্দি উপজেলার কোলাকোপা প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যান, যেখানে আলাদা আলাদা ভাবে ৪টি বিদ্যালয়ের প্রায় ৪৫০জন ছেলে, মেয়ে ও অভিভাবকরা উপস্থিত ছিলেন।

বিদ্যালয় গুলোতে শিশুদেরকে জড় করে একটি সার্কেল তৈরি করে এবং অতঃপর লিফলেট বিতরণ করা হয় যাতে কীটনাশক ব্যবহারের ক্ষতিকর প্রভাব এবং কৃষিবিদ্যা গ্রহণের প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে তথ্য পেতে পারে। এরপর স্থানীয় যুব সাংস্কৃতিক দলের সদস্যরা একটি জারিগানের (গ্রামীণ লোকগান) একটি মিমিক তৈরি করা হয়। লোকগানে কীটনাশক ব্যবহারসহ খাদ্যে ভেজাল ও দূষণের ক্ষতিকর প্রভাব তুলে ধরা হয়েছে। শিশুরা পরিবেশনা উপভোগ করে এবং তাদের সাথে অংশ নেয়। বিদ্যালয়ের শিক্ষক এই বিষয়ে তার বক্তব্য প্রদান করেন যেখানে তিনি আমাদের শিশুকে কীটনাশকের প্রভাব থেকে রক্ষা করার গুরুত্বের উপর জোর দেন। এরপর একজন অভিভাবক তার জমিতে কীটনাশক ব্যবহারের ক্ষতিকর প্রভাব সম্পর্কে তার নিজের বাস্তব অভিজ্ঞতার কথা জানান। এবং তিনি এটাও বলেন যে এরপর থেকে তিনি আর তার নিজের ফসলি জমিতে কীটনাশক ব্যবহার করবেন না। তারপরে জনতা ব্যানারে স্বাক্ষর করতে গেল যাতে আমাদের শিশুকে কীটনাশকের অনিয়ন্ত্রিত ব্যবহার থেকে রক্ষা করার গুরুত্ব স্বীকার করা হয়। এই প্রচারাভিযান সম্পর্কে তাদের দৃষ্টিকোণ সম্পর্কে সম্প্রদায়ের লোকদের কাছ থেকে কিছু সাক্ষাৎকার সংগ্রহ করা হয়েছিল।

আরো পড়ুন:  মহারাষ্ট্রের মন্ত্রী পর্যায়ের প্রতিনিধিদল প্রযুক্তি জায়ান্ট ফক্সকনের সাথে বৈঠক করেছে

এরপর দলটি চান্দিনা উপজেলার নুরপুর ইলিয়টগঞ্জ ইউনিয়নের দৌলতপুর প্রাথমিক বিদ্যালয় নামে আরেকটি বিদ্যালয়ে যান। সেখানে উপস্থিত থাকা প্রায় ৬০ জন শিক্ষার্থীদেরকে কীটনাশকের ক্ষতিকর প্রভাব সম্পর্কে অবহিত করা হয়। কীটনাশক ব্যবহার না করে জৈব সার ব্যবহার করে ফসল উৎপাদন করা যায় সে সম্পর্কে তাদেরকে অবগত করা হয়। সাথে তাদের পিতামাতাকে উল্লেখ্য বিষয়ে সচেতন করার জন্য বলা হয়। দলটির সাথে কথোপকথনের সময় তারা জানতে পারে যে তাদের মধ্যে কারও কারও দৃষ্টি ঝাপসা রয়েছে, প্রাথমিক জিজ্ঞাসায় তারা বলেন যে, “তাদের খামারের মধ্য দিয়ে স্কুলে যেতে হয়”। এভাবে তারা কুমিল্লার দৌলতপুর ও খোপবাড়িয়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ও প্রচারাভিযান ও অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

Check out our other content

Check out other tags:

Most Popular Articles