28 C
Bangladesh
বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ১১, ২০২৪

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই দিনব্যাপী জাতীয় বিজ্ঞান মেলা-২০২২ এর উদ্বোধন

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই দিনব্যাপী জাতীয় বিজ্ঞান মেলা-২০২২ এর উদ্বোধন

শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০ ঘটিকায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ সুখরঞ্জন সমাদ্দার ছাত্র-শিক্ষক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে (টিএসসিসি) বেলুন উড়িয়ে “আরইউএসসি ন্যাশনাল সায়েন্স ফিয়েস্টা-২০২২” মেলার উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর গোলাম সাব্বির সাত্তার। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন, সম্মানিত অতিথি, প্রফেসর ড. মোঃ শাহ আজম (উপাচার্য, রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়) এবং প্রফেসর ড. মোঃ সাদেকুল আরেফিন (উপাচার্য, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়), বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক মো. সুলতান-উল-ইসলাম এবং রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় সায়েন্স ক্লাবের প্রতিষ্ঠাকালীন উপদেষ্টা প্রফেসর ড. তারিকুল হাসান। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, প্রতিষ্ঠাকালীন সভাপতি জহুরুল ইসলাম মুন সহ ক্লাবের স্থায়ী কমিটির সদস্য, আজীবন সদস্য এবং আরো অনেকে।
প্রথমেই শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন, ক্লাবের প্রতিষ্ঠাকালীন সভাপতি জহুরুল ইসলাম মুন।
উপ-উপাচার্য মো. সুলতান-উল-ইসলাম স্যার তার বক্তব্যে বলেন, তরুণদের এই আয়োজনকে আমরা স্বাগত জানাই। বিজ্ঞান চর্চার মাধ্যমে দেশ সামনের দিকে এগিয়ে যাবে।
প্রফেসর ড. মোঃ শাহ আজম বলেন, বিজ্ঞান আমাদের চতুর্থ শিল্প দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় সায়েন্স ক্লাবের এই আয়োজন একটি অনন্য আয়োজন।

আরো পড়ুন:  রাবি সায়েন্স ক্লাবের উদ্যোগে তিনদিন ব্যাপী আয়োজিত গ্রন্থ কুঠির উদ্ধোধন

প্রফেসর ড. মোঃ সাদেকুল আরেফিন বলেন, বিজ্ঞান যত এগিয়ে যাবে, দেশ ততই এগিয়ে যাবে। এজন্য বিজ্ঞান চর্চার বিকল্প কিছু নেই। সারা বাংলাদেশে বিজ্ঞান চর্চা বিকশিত করতে হবে। যার মাধ্যমে আমরা দেশকে উন্নতির দিকে নিয়ে যেতে পারবো।

উপাচার্য প্রফেসর গোলাম সাব্বির সাত্তার বলেন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় সায়েন্স ক্লাব প্রতিষ্ঠার পর থেকেই বিজ্ঞান বিকাশ ও জনপ্রিয় করতে কাজ করে চলেছে। তারা সেই ধারাবাহিকতা বজায় রাখুক। বর্তমান যুগে বিজ্ঞানের কোন বিকল্প নেই।
বিজ্ঞান বিমুখ শিক্ষার্থীদের বিজ্ঞানমুখী করে তুলতে সায়েন্স ক্লাব গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে এবং
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় সায়েন্স ক্লাবের দুই দিনব্যাপী জাতীয় বিজ্ঞান মেলা-২০২২ এর উদ্বোধন ঘোষণা করছি।
উদ্বোধন শেষে অতিথিবৃন্দ সায়েন্স শো পরিদর্শন করেন।
ফিয়েস্টার সভাপতিত্ব করবেন রাবি সায়েন্স ক্লাবের সভাপতি আবিদ হাসান । তিনি বলেন- গতিময় বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে ২০১৫ সালে যাত্রা শুরুর পর থেকেই রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় সায়েন্স ক্লাব। বাংলাদেশের শিক্ষার্থীদের মাঝে বিজ্ঞানকে জনপ্রিয় করতে নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছে।ক্লাবটির সৃজনী কর্মদ্যম পর্যবেক্ষণ করে প্রতিষ্ঠার তৃতীয় বছরেই জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘর ক্লাব টিকে নিবন্ধন দেয়।টেকসই উন্নয়ন ত্বরান্বিত ও বিজ্ঞানকে জনপ্রিয় ও গ্রহণযোগ্য করার মাধ্যমে জীবনমান উন্নয়নে অবদান রাখছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় সায়েন্স ক্লাব ।

আরো পড়ুন:  রাবি ভর্তি পরীক্ষার সিলেকশন পদ্ধতি নিয়ে শিক্ষার্থীদের সমালোচনা 

জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের সহযোগিতায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় সায়েন্স ক্লাব উদ্যোগে ষষ্ঠ বারের মতো এ উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে।

উল্লেখ্য যে, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় সায়েন্স ক্লাব ২০১৫ সালে প্রতিষ্ঠা হয়। প্রতিষ্ঠার পরের বছর ২০১৬ সাল থেকে জাতীয় বিজ্ঞান উৎসব আয়োজন করা হয়। প্রথম বছরেই ব্যাপক জনপ্রিয় হয়ে ওঠে এই আয়োজন। সেই থেকে শুরু হওয়া জাতীয় বিজ্ঞান উৎসব এখন পর্যন্ত সফলতার সাথে উৎযাপন হয়। প্রতিবছর কয়েক হাজার বিজ্ঞান প্রেমী শিক্ষার্থী অংশ নেয় জনপ্রিয় এই বিজ্ঞান মেলায়৷

আরো পড়ুন:  গলায় ফাঁস দিয়ে রাবি শিক্ষার্থীর আত্নহত্যা, নেট দুনিয়ায় আলোচনার ঝড়

ফিয়েস্টার প্রথম দিনের আয়োজনে যা থাকবেঃ
উদ্বোধনী পর্ব, সায়েন্স অলিম্পিয়াড, প্রোগ্রামিং কনটেস্ট, প্রজেক্ট শো কমপিটিশন।

দ্বিতীয় দিনে থাকবেঃ প্রজেক্ট শো কমপিটিশন, পোস্টার প্রেজেন্টেশন, ওয়াল ম্যাগাজিন, সায়েন্টিফিক স্পিচ কম্পিটিশন, রুবিক্স’স কিউব
, পেইন্টিং কম্পিটিশন, তিন মিনিট থিসিস প্রেজেন্টেশন

দুই দিনব্যাপী এ বিজ্ঞান মেলার বিভিন্ন ইভেন্টে রাজশাহী এবং রাজশাহীর বাইরের বিভিন্ন স্কুল, কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় পনের শতাধিক শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন।

এবারের সায়েন্স ফিয়েস্টায় কোলাবোরেশানে রয়েছে জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘর, সাপোর্টিং পার্টনার ইএমকে সেন্টার, মিনিস্ট্রি অফ সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি এবং চিরকুট, এসোসিয়েট পার্টনার প্রথম আলো,পাবলিকেশন পার্টনার ইউনিভার্সিটি প্রেস লিমিটেড, ম্যাগাজিন পার্টনার বিজ্ঞানচিন্তা, মিডিয়া পার্টনার যমুনা।

আগামীকাল রোববার (২৫ সেপ্টেম্বর) বিকাল ৩ঃ০০ ঘটিকায় শহীদ সুখরঞ্জন সমাদ্দার ছাত্র-শিক্ষক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে (টিএসসিসি) সমাপনী অনুষ্ঠান সম্পন্ন হবে।

Check out our other content

Check out other tags:

Most Popular Articles